fbpx

”হেপাটোসেলুলার কার্সিনোমা”- কোন ধরণের ক্যান্সার?

শরীরে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গ লিভার। সুস্থ থাকতে লিভারের অবশ্যই খেয়াল রাখতেই হবে। লিভারের কিছু সমস্যাকে অবহেলা করে আমরা এড়িয়ে যাই। আমরা কি জানি ছোট সমস্যাগুলোকে অবহেলার কারণেই বড় সমস্যার জন্ম হয়?

ভবিষ্যতের বড় সমস্যা গুলো এড়িয়ে চলতে আমাদের প্রথমেই ছোট সমস্যা গুলোর প্রতি নজর দিতে হবে। এগুলোর উৎপত্তির সাথে সাথেই নিরাময় করে ফেলতে হবে। তবেই লিভার ক্যান্সার এর প্রাথমিক পর্যায়ের রোগ হেপাটোসেলুলার কার্সিনোমার মতো রোগ থেকে বাঁচা সম্ভব।

হেপাটোসেলুলার কার্সিনোমা

লিভার ক্যান্সারের মধ্যে সবচেয়ে বেশি দেখা যায় হেপাটাইসেলুলার কার্সিনোমা। হেপাটাইসেলুলার কার্সিনোমা প্রায়শই দীর্ঘস্থায়ী লিভারের রোগ যেমন- হেপাটাইটিস বি বা হেপাটাইটিস সি সংক্রমণজনিত সিরোসিসযুক্ত লোকদের মধ্যে দেখা যায়।  

লক্ষণ:

  • ওজন কমে যাওয়া
  • ক্ষুধামান্দ্য
  • বমি বমি ভাব
  • বমি
  • উপরের পেট ব্যথা
  • দুর্বলতা
  • অবসাদ
  • পেট ফুসকুড়ি
  • মারাত্মক বা রক্তপাত

এরকম হতে পারে যে হেপাটোসেলুলার কার্সিনোমা রোগের শারীরিক লক্ষণ দেখা না দিলেও তা রোগীর দেহে বিদ্যমান থাকতে পারে।

ঝুঁকির কারণ:

  • দীর্ঘমেয়াদী লিভারের রোগে আক্রান্ত ব্যক্তিদের মধ্যে লিভার ক্যান্সারের সবচেয়ে সাধারণ ধরণ হেপাটোসেলুলার কার্সিনোমা হওয়ার ঝুঁকি বেশি থাকে।  
  • হেপাটাইটিস বি বা হেপাটাইটিস সি- সংক্রমিত লোকদের মধ্যে এটি হওয়ার সম্ভাবনা আরও বেশি।   
  • হেপাটোসেলুলার কার্সিনোমা এমন লোকদের মধ্যে বেশি দেখা যায় যারা প্রচুর পরিমাণে অ্যালকোহল পান করেন এবং যাদের লিভারে ফ্যাট জমা হয়।

রোগ নির্ণয়:

হেপাটোসেলুলার কার্সিনোমা নির্ণয়ের জন্য ব্যবহৃত পরীক্ষা ও পদ্ধতিগুলোর মধ্যে রয়েছে:   

  • লিভারের কার্যকারিতা পরিমাপের জন্য রক্ত ​​পরীক্ষা করা
  • ইমেজিং পরীক্ষা, যেমন সিটি স্ক্যান এবং এমআরআই
  • লিভার বায়োপসি, কিছু ক্ষেত্রে ল্যাব টেস্টের জন্য লিভার টিস্যুর নমুনা সংগ্রহ করা হয়।

চিকিৎসা:

কোন চিকিৎসা আপনার পক্ষে সেরা তা আপনার হেপাটোসেলুলার কার্সিনোমার আকার এবং অবস্থান, আপনার লিভারটি কতটা ভালোভাবে কাজ করছে এবং আপনার সামগ্রিক স্বাস্থ্যের উপর নির্ভর করবে।  

হেপাটোসেলুলার কার্সিনোমা চিকিৎসার মধ্যে রয়েছে:   

  • সার্জারি: ক্যান্সার অপসারণের শল্যচিকিৎসা এবং এর চারপাশে থাকা স্বাস্থ্যকর টিস্যুগুলোর একটি মার্জিন প্রাথমিক পর্যায়ে লিভারের ক্যান্সারে আক্রান্ত ব্যক্তিদের জন্য একটি বিকল্প হতে পারে যাদের স্বাভাবিক লিভারের কার্যকারিতা রয়েছে।  
  • লিভার ট্রান্সপ্ল্যান্ট সার্জারি: পুরো লিভারটি অপসারণ এবং কোনো দাতার কাছ থেকে এটি লিভারের সাথে প্রতিস্থাপনের জন্য অস্ত্রোপচার হলো অন্য কোনো স্বাস্থ্যবান ব্যক্তিদের মধ্যে একটি বিকল্প হতে পারে যাদের লিভারের ক্যান্সার যকৃতের বাইরে ছড়িয়ে পড়ে নি।   
  • তাপ বা শীত সহ ক্যান্সার কোষগুলি ধ্বংস করা: প্রচণ্ড উত্তাপ বা ঠান্ডা ব্যবহার করে লিভারে ক্যান্সার কোষগুলো মেরে ফেলার প্রক্রিয়াগুলোর পরামর্শ দেওয়া যেতে পারে যারা সার্জারি করতে পারেন না তাদের জন্য। এই পদ্ধতিগুলির মধ্যে রয়েছে রেডিও-ফ্রিকোয়েন্সি অ্যাবেশন, ক্রায়োব্লেশন এবং অ্যালকোহল বা মাইক্রোওয়েভ ব্যবহার করে অপসারণ।   
  • কেমোথেরাপি বা রেডিয়েশন সরাসরি ক্যান্সার কোষে সরবরাহ করা: আপনার রক্তনালীগুলোর মধ্য দিয়ে এবং আপনার যকৃতে প্রবেশকারী ক্যাথেটার ব্যবহার করে চিকিৎসা করা। কেমোথেরাপির ওষুধ (কেমোম্বোলাইজেশন) বা ক্যান্সার কোষগুলোতে সরাসরি রেডিয়েশন (রেডিও এম্বেমোলাইজেশন )যুক্ত ক্ষুদ্র কাঁচের গোলক সরবরাহ করতে পারেন।   
  • বিকিরণ থেরাপি: এক্স-রে বা প্রোটন থেকে শক্তি ব্যবহার করে রেডিয়েশন থেরাপির পরামর্শ দেওয়া যেতে পারে যদি সার্জারি কোনো বিকল্প না হয়। স্টিরিওট্যাকটিক বডি রেডিওথেরাপি (এসবিআরটি) নামে পরিচিত একটি বিশেষ ধরণের রেডিয়েশন থেরাপিতে আপনার দেহের এক পর্যায়ে একসাথে অনেকগুলো রশ্মি বিকিরণকে কেন্দ্র করে। 
  • লক্ষ্যযুক্ত ড্রাগ থেরাপি: লক্ষ্যযুক্ত ওষুধগুলি ক্যান্সারের কোষগুলিতে নির্দিষ্ট দুর্বলতাগুলিকে আক্রমণ করে এবং তারা উন্নত লিভার ক্যান্সারে আক্রান্ত ব্যক্তিদের মধ্যে এই রোগের অগ্রগতি ধীর করতে সহায়তা করতে পারে।
  • ইমিউনোথেরাপি: ইমিউনোথেরাপির ওষুধগুলো ক্যান্সারের কোষগুলোতে আক্রমণ করার জন্য আপনার দেহের জীবাণু-লড়াই প্রতিরোধ ব্যবস্থা ব্যবহার করে। উন্নত লিভার ক্যান্সারের চিকিৎসার জন্য ইমিউনোথেরাপি বিকল্প হতে পারে।
  •   ক্লিনিকাল ট্রায়ালগুলি আপনাকে নতুন লিভার ক্যান্সারের চিকিৎসার চেষ্টা করার সুযোগ দেয়। আপনি কোনো ক্লিনিকাল পরীক্ষায় অংশগ্রহণের জন্য যোগ্য কিনা তা আপনার ডাক্তারের সাথে যোগাযোগ করুন।     

কম খরচে লিভার ক্যান্সারের চিকিৎসা পেতে যোগাযোগ করুন-

Cancer Home BDরাফা মেডিকেল সার্ভিসেস, ৫৩ মহাখালী, টিবি হাসপাতালের সামনে।ঢাকা-১২১৬

যোগাযোগ: ০১৭১৫০৯০৮০৭

You May Also Like…

কভিড -১৯ ভ্যাকসিন ক্যান্সারে আক্রান্ত কিছু লোকের জন্য কম কার্যকর হতে পারে-

কভিড -১৯ ভ্যাকসিন ক্যান্সারে আক্রান্ত কিছু লোকের জন্য কম কার্যকর হতে পারে-

বর্তমান করোনা পরিস্থিতি খারাপ থেকে খারাপের দিকে যাচ্ছে। আক্রান্তের সংখ্যা দিন দিন বেড়েই চলেছে এতে ডাক্তাররাও এদের...

কোরবানি ইদের খাবার ও সতর্কতা-

কোরবানি ইদের খাবার ও সতর্কতা-

ইদ হলো আনন্দের দিন, যার অন্যতম অনুষঙ্গ হলো খাবার। আর কোরবানির ইদের অন্যান্য খাবারের সাথে মূল আয়োজন হলো বিভিন্ন রকমের...

0 Comments

Submit a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *