fbpx

ধূমপান ছাড়াও আর যে যে কারণে হতে পারে ফুসফুস ক্যান্সার

ফুসফুস ক্যান্সার কি শুধু পুরুষের হয়? সিগারেট খেলেই হয়? মহিলাদের ফুসফুস ক্যান্সার এর ঝুঁকি কতোটা? সিগারেট ছাড়া আর কি কারণে হতে পারে এই ক্যান্সার?

এই সব অজানা তথ্য ২ মিনিটে জেনে নিন নিচের লেখা থেকে।

রাসেল কখনো সিগারেট খায়নি। খাওয়া তো দূরে থাক সে কখনো সিগারেটে হাতও দেয়নি। কিন্তু তারপরও সে এখন ফুসফুস ক্যান্সার এর রোগী। রাসেল এবং তার পরিবার কিছুতেই বুঝে উঠতে পারছেনা ধুমপান না করা সত্ত্বেও কিভাবে এই রোগ হলো।

কারো ফুসফুসের ক্যান্সার হয়েছে শুনলে আমরা ধারণা করে নিই সে নিশ্চয় ধুমপান করত। কিন্তু সবাই তো আর ধুমপান করে না। তাহলে আর কী কারণ হতে পারে এটাই ভাবছেন তো!

ধুমপান ছাড়া আরো অনেক কারণ আছে যা সম্পর্কে আমরা অবগত নই। এই কারণ গুলো জানা থাকলে ফুসফুসের ক্যান্সার সহ বিভিন্ন রোগ এড়ানো যাবে।

***ফুসফুসের ক্যান্সারের কারণঃ পরিবেশগত কারণ ও লাইফস্টাইল সম্পর্কিত বেশ কিছু উপাদানে ফুসফুস ক্যান্সারের উৎপত্তি হয়।

ফুসফুস ক্যান্সারের কারণগুলো হলো—

** ধূমপানঃ ফুসফুস ক্যান্সারের জন্য ধূমপান হলো সবচেয়ে ঝুঁকিপূর্ণ উপাদান। প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষ ধূমপান দুটিই ফুসফুসের ক্যান্সার সৃষ্টি করে। ফুসফুসের সব ধরনের ক্যান্সার রোগীর ৯০ শতাংশই ধূমপায়ী। আর ৫ শতাংশ পরোক্ষ ধূমপায়ী ক্যান্সারে ভোগে। দিনে ২০টি করে ৪০ বছর সিগারেট খেলে ফুসফুসের ক্যান্সার হওয়ার আশঙ্কা অধূমপায়ীর তুলনায় ২০ গুণ বেশি হয়। ধূমপান ত্যাগ করলে ক্যান্সারের ঝুঁকি কমে যায়। অনূর্ধ্ব ৩০ বছর বয়সে ধূমপান ত্যাগে সবচেয়ে ভালো সুফল পাওয়া যায়।

** বায়ুদূষণঃ অজৈব পদার্থের ক্ষুদ্র কণা বা আঁশ যেমন : এসবেস্টস, নিকেল, ক্রোমিয়াম এবং জৈব পদার্থ যেমন : বেনজিন, বেনজোপাইরিন বায়ুর সঙ্গে ফুসফুসে প্রবেশ করে ফুসফুসের ক্যান্সার সৃষ্টি করতে পারে।

** তেজস্ক্রিয়তাঃ ক্যান্সার চিকিৎসায় যে রেডিওথেরাপি দেওয়া হয়, তার তেজস্ক্রিয়তায় ক্যান্সার রোগী দ্বিতীয়বার ক্যান্সারে আক্রান্ত হতে পারে। বায়ুতে রোডন নামের গ্যাসেও তেজস্ক্রিয়তা থাকে। এটি ধূমপানের পরে ফুসফুসে ক্যান্সারের অন্যতম কারণ।

** খাদ্যাভ্যাসঃ অতিরিক্ত চর্বি ও কোলেস্টেরল সমৃদ্ধ খাবার এই ক্যান্সারের জন্য দায়ী।

** অন্যান্য রোগঃ অনেক দিন ধরে শ্বাসকষ্ট জনিত রোগে ভুগছেন যারা অথবা যক্ষ্মা, সিলিকসিস( ফুসফুসে হয় মন একটি রোগ ) এ গুলোতে ফুসফুসের ক্যান্সারের ঝুঁকি বাড়ে।

** জেনেটিক বা বংশগতঃ ফুসফুসের ক্যান্সার রোগীর আত্মীয়ের ক্যান্সার হওয়ার ঝুঁকি দ্বিগুণ। ধারণা করা হয়, ক্যান্সার রোগের উৎপত্তিতে বংশগত প্রভাব বিদ্যমান।

তাহলে উপরোক্ত আলোচনা থেকে কী দাঁড়ালো?

⭐ ধূমপান অনেক বেশি দায়ী হলেও এর বাইরে আরো অনেক কারণে ফুসফুসে ক্যান্সার হতে পারে। ক্যান্সার আক্রান্ত ব্যক্তি যদি ধূমপান করেননি বলে আমরা অবিশ্বাস করবো না।

⭐ মহিলা কিংবা পুরুষ যে কেউ এই ক্যান্সারে আক্রান্ত হতে পারে।

অল্প খরচে ফুসফুস ক্যান্সার এর চিকিৎসা পেতে যোগাযোগ করুন-

Cancer Home BD

রাফা মেডিকেল সার্ভিসেস, ৫৩ মহাখালী, টিবি হাসপাতালের সামনে।ঢাকা-১২১৬

যোগাযোগ: ০১৭১৫০৯০৮০৭

You May Also Like…

কোলন ক্যান্সার রোগী কী খাবেন:

কোলন ক্যান্সার রোগী কী খাবেন:

শুধু স্বাস্থ্য ভালো রাখার জন্য ডায়েট মেনে চলতে হয় এমন কিন্তু নয়। কোনো রোগে আক্রান্ত হলেও একটা নির্দিষ্ট ডায়েট মেনে...

0 Comments

Submit a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *